বাউফলে ৬৪ মন্ডপে দুর্গা পূজা, চলছে রং তুলির কাজ

0

অতুল পাল, বিশেষ প্রতিনিধি: আর কয়েক দিনের মধ্যেই শুরু হচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পূজা। এবারে বাউফলে ৬৪ মন্ডপে দুর্গা পূজা উদযাপন করা হচ্ছে। পটুয়াখালী জেলার মধ্যে বাউফলেই বেশি সংখ্যক মন্ডপে দুর্গা পূজা হচ্ছে। একটি খুনের ঘটনার প্রতিবাদে এবছর উপজেলার কালাইয়া ইউনিয়নের একটি মন্ডপে পূজা উদযাপন হচ্ছেনা। দুর্গা পূজাকে কেন্দ্র করে চারদিকে সাজ সাজ রব। চলছে মন্দির সাজানোর কাজ। মন্ডপে মন্ডপে শিল্পীরা রং তুলি নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন।

বাউফল থানা কর্র্তৃক প্রস্তুতকৃত তালিকা অনুযায়ি চলতি বছর বাউফলে ৬৫ টি মন্ডপে দুর্গা পূজা উদযাপন করা হবে বলে জানানো হলেও উপজেলার কালাইয়া ইউপির কর্পূরকাঠী মনোরঞ্জন সিকদার বাড়ির পূজাটি হচ্ছেনা। পূজা কমিটির কোষাধ্যক্ষ অশ^তমা মিস্ত্রিকে খুন করার প্রতিবাদে এবার পূজা হবে না বলে জানিয়েছেন ওই মন্ডপের সাধারন সম্পাদক আনন্দ মিস্ত্রি। পূজা না হওয়ার বিষয়টি প্রশাসন সম্প্রতি জেনেছেন বলে বাউফল থানা পুলিশ জানিয়েছেন। এবছর বাউফল পৌর এলাকায় ৫, কাছিপাড়ায় ৫, কালিশুরীতে ৯, ধুলিয়ায় ৬, কেশবপুরে ২, সূর্যমনিতে ১, কনকদিয়ায় ৫, বগায় ১১, কালাইয়ায় ৩, দাশপাড়ায় ১, বাউফলে ৮, আদাবাড়িয়ায় ৬ এবং নওমালায় ২টি পূজা হবে। পুলিশ প্রশাসন নিরাপত্তার দিক থেকে এরমধ্যে ২৩টি অধিক গুরুত্বপূর্ণ, ১৯টি গুরুত্বপূর্ণ এবং বাকি ২২টি সাধারন হিসেবে চি‎িহ্নত করেছেন। বাউফল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহম্মদ আবদুল্লাহ আল মাহামুদ জামান জানান, আগামিকাল শনিবার বিকেলে স্থানীয় এমপি ও জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ আ.স.ম. ফিরোজের উপস্থিতিতে পূজা এবং আইন-শৃংখলা বিষয়ে সভা হবে। ওই সভায় প্রত্যেক মন্ডপের প্রতিনিধি থাকবেন। সেখানে আরো বিশ্লেষণ করে পূজায় প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা দেয়া হবে। বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আযম খান ফারুকী জানান, পূজায় পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দেয়া হবে। আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটে এমন যে কোন ধরণের অপচেষ্টাকে কঠিনভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হবে।