বাউফল উপজেলা পরিষদের ৫টি অফিসে চুরি

2

অতুল পাল, বিশেষ প্রতিনিধি: সোমবার গভীর রাতে বাউফল উপজেলা পরিষদের ৫টি অফিসে দু:সাহসিক চুরি সংঘটিত হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার চুরির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। এর আগে গত শনিবার রাতে সরকারি বাউফল কলেজ, বাউফল সালেহিয়া মাদ্রাসাসহ ১০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরি সংঘটিত হয়েছে। উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরসহ সকল অফিসের বিল্ডিং ক্লোপসিবল গেট দিয়ে সুরক্ষিত থাকার পরেও এধরণের চুরির ঘটনায় অফিস পাড়ায় আতংক ছড়িয়ে পরেছে।

বাউফল উপজেলা নির্বাহী অফিস সূত্রে জানা গেছে, সোমবার (১ আগষ্ট) গভীর রাতে বাউফল উপজেলা পরিষদের সমাজসেবা অফিস, প্রাথমিক শিক্ষা অফিস, হিসাব রক্ষণ অফিস, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর ও পল্লী দারিদ্র বিমোচন অফিসে চুরি সংঘটিত হয়। চোরের দল প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের আলমিরা ভেঙ্গে ৩৫ হাজার এবং পরøী দারিদ্র বিমোচন অফিস থেকে ১৮ হাজার টাকা নিয়ে যায়। এসময় ওই সকল অফিসের বিভিন্ন কাগজপত্র ও আসবাবপত্র এলামেলো করে ফেলে রেখে যায়। এরআগে গত শনিবার রাতে বাউফল পৌর শহরের মধ্যে সরকারি বাউফল কলেজ, বাউফল সালেহিয়া মাদ্রাসা, বাংলা বাজার মসজিদ এবং তালুকদার সু-হাউসসহ ১০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে চুরি হয়েছে। বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আযম খান ফারুকী জানান, হঠাৎ করে এধরণের চুরির ঘটনায় আমারও হতবাক। বিষয়গুলো গুরুত্বসহকারে খতিয়ে দেখছি।