বিদ্যালয়ের ছাদে ফলজ গাছের বাগান

0

স্টাফ রিপোর্টারঃ পটুয়াখালীর বাউফলের বিলবিলাস-১নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাদে আম, জাম, কুল, কাঁঠাল, পেঁপে ও পেয়ারা সহ নানান জাতের ফল গাছ রোপণ করা হয়েছে । স্কুলের ছাদে ফলজ গাছের বাগান দেখে উৎসাহিত হচ্ছে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।  কেউ কেউ বাড়ি গিয়ে একই রকম ফলের বাগান করার চেষ্টাও করছে। প্রতিদিন এই বিদ্যালয়ের ছাদে ফলদ গাছের বাগান দেখতে আসেন উৎসুক মানুষ।

সূত্র জানায়, বাউফল উপজেলা সদর ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন বিলবিলাস  সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাদে প্রায় দেড় বছর আগে ফলজ গাছের বাগান করেন শিক্ষকরা।  প্রতিনিয়ত ক্লাশ বিরতির সময় শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা বাগান পরিচর্যা ও পরিদর্শন করেন। ছাদে বাগান করার কয়েক মাসের মাথায় ফল আসতে শুরু করে। এতে আগ্রহ আরও বেড়ে যায় শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের। পরে বিদ্যালয়ের পাশে একটি পরিত্যক্ত জায়গায় আরও একটি নতুন বাগান করেন কর্তৃপক্ষ। বেশীরভাগ সময় বাগান নজরে রাখেন বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরী কাম পিয়ন মঞ্জুরুল হক। ১৯৪০ সালে স্থাপিত বিলবিলাস সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বর্তমানে শিক্ষার্থী সংখ্যা ৩২৬জন। প্রতিবছর প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় ফলাফল অর্জনের ক্ষেত্রেও রয়েছে সাফল্য। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের খেলায় বিভাগীয় পর্যায়ে রানার্স আপ এবং জেলা পর্যায়ে দুই দুই বার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার রেকর্ডও এই বিদ্যালয়ের রয়েছে।

বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক আশরাফ আলী খান বলেন, মূলত শিক্ষার্থীদের উৎসাহ প্রদান এবং বিদ্যালয়ের পরিবেশ সুন্দর রাখার জন্যই ছাদে এবং আঙিনায় ফলদ বাগান করা হয়েছে। শিক্ষক এবং ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা যৌথভাবে আর্থিক সহায়তা দিয়ে এই বাগান করেন। বর্তমানে এই বাগান দেখে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা উৎসাহিত হচ্ছে। রুবেল, সালমা, মিনারা, বাপ্পী ও রিফাতসহ পঞ্চম শ্রেণীর একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, স্কুলে এসে ছাদে গিয়ে বাগানের পেঁপে, পেয়ারা ও কুলসহ নানান জাতের ফল দেখে চোখ জুড়িয়ে যায়। এই বাগান দেখে আমরা বাড়িতে নিজেরা ফলের গাছ লাগিয়েছি। বাগানের পরিচর্যা কিভাবে করতে হয়ে তা শিক্ষকদের কাছে শিখেছি। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেহেনা বেগম বলেন, প্রতিদিন বিভিন্ন এলাকার অনেক উৎসুক মানুষ এই বাগান পরিদর্শন করার জন্য আসেন।  বাউফলের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামান বলেন, আমি নিজে এই বাগান পরিদর্শন করে মুগ্ধ হয়েছি। উপজেলার অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাদে কিংবা আঙিনায় এরকম বাগান করার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্টদের এগিয়ে আসা উচিত বলে মনে করেন তিনি।