বেতাগী পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা উপেক্ষা করে  অর্পিত সম্পত্তিতে ঘর উত্তোলন

0

 

বেতাগী বিশেষ, প্রতিনিধি ঃ বেতাগী পৌর এলাকায় অর্পিত সম্পত্তির উপড় নিষেধাজ্ঞা জারি উপেক্ষা করে  ঘর নির্মানের অভিযোগ পাওয়াগেছে। উপজেলা ভুমি অফিসের সার্ভেয়ার মো: জাকির হোসেনের যোগসাজশে পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা বিসেশ্বর মালাকারের পূত্র কালু মালাকার জমি বন্দোবস্ত না নিয়ে অবৈধভাবে ভোগ দখল করে।এতে  রাজস্ব বঞ্চিত ও সরকারী সম্পত্তি বেহাত হওয়ার উপক্রম হয়েছে।

জানা গেছে,সরকার  রাজস্ব বঞ্চিত হওয়ায়  ২০১৫ সালের ২০ জানুয়ারি তৎকালীন  উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) মোহাম্মদ মনির হোসেন হাওলাদার পৌর এলাকার জেএল ১৪,বেতাগী মৌজার এসএ ৩৮,৩৯,৪৩ খতিয়ানের ২১৬২,২১৬৭,২১৭৭,২৪৬৮,২৪৭৫ ও ২৪৯৪ নং দাগভুক্ত অর্পিত সম্পত্তির উপড় নিষেধাজ্ঞা জারির সিদ্ধান্ত গ্রহন করে।শান্তি  শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য ১২৪৪ ধারা জারি পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ঔ জমির শ্রেনি পরিবর্তনসহ সকল প্রকার অবকাঠামোগত নির্মান কাজ বন্ধ রাখার  নির্দেশনা দেওয়া হয়।স্থানীয়রা অভিযোগ করেন,লীজ গ্রহন না করে নিষেধাজ্ঞা সত্বেও উপজেলা ভুমি অফিসের সার্ভেয়ার মো: জাকির হোসেনের যোগসাজশে বেতাগী পৌর এলাকার ওই বাসিন্দা ভিপিভুক্ত জমি অবৈধভাবে ভোগদখল করার উদ্দেশ্যে ঘর উত্তোলন করে। উপজেলা ভুমি অফিসের সার্ভেয়ার মো: জাকির হোসেন তার যোগসাজশের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, তার অগোচরে ঘর উত্তোলন করা হয়েছে।এখন উচ্ছেদ মামলা করে ঘরটি সরাতে হবে।এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম.এম,মাহমুদুর রহমান জানান,নতুন যোগদান করায় সব বিষয় এখনো অবহিত নই।তবে সরকারি সম্পত্তি রক্ষায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

বাদী রুস্তুম আলী অভিযোগ করেন চার্জসিটে অব্যাহতি পেয়ে ইসমাইল ও তার মা জাহানার বেগম মামলাটি প্রত্যাহার করার জন্য বিভিন্ন ভাবে  ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। মামলার বাদী রুস্তুম আলী কবিরাজ তার মেয়ে হত্যার ন্যায় বিচারের দাবী জানিয়েছেন ।