ভিক্ষুকমুক্তকরণ, ভিক্ষুকদের কর্মসংস্থান ও পূর্ণবাসন কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণে মতবিনিময় সভা

2

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ দারিদ্র বিমোচন, কর্মসংস্থান ও সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টুনি সম্প্রসারণ ভিক্ষাবৃত্তিতে নিয়োজিত পটুয়াখালী সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা ১২টায় সদর উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদ এর আয়োজনে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী। সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ বাকাহীদ হোসেন এর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ্যাড মোঃ তারিকুজ্জামান মনি, পটুয়াখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি কাজী শামসুর রহমান ইকবাল। এছাড়া ভিক্ষুকমুক্তকরণ, ভিক্ষুকদের কর্মসংস্থান ও পূর্ণবাসন কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণে মতবিনিময় সভায় মতামত ব্যক্ত করেন জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শাহিদা বেগম,উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জীর মৃধা, সমবায় কর্মকর্তা পংকজ কুমার চন্দ্র,সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ আবদুস সালাম , উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা এম মনিরুজ্জামান,উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা সাহাবুদ্দিন নান্নু,কালিকাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান তানভীর আহমেদ, লাউকাঠির মোঃ শহিদুল ইসলাম খোকন, আউলিয়াপুরের মোঃ হুমায়ুন কবির,বড়বিঘাই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারমান ওয়াহিজ্জামান মজনু,এসডি এর নির্বাহী পরিচালক কে এম এনায়েত হোসেন,শুকতারা মহিলা সমিতির পরিচালক মাহফুজা ইসলাম, আহসানিয়া মিশন জেলা প্রতিনিধি হাসান মাহমুদ শহিদুল্লাহ,লোহালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সচিব যাদব কুমার দত্ত প্রমুখ। ভিক্ষাবৃত্তিতে নিয়োজিত জনগোষ্ঠীকে ক্ষুদ্র ব্যবসা, কাপড়ের ব্যবসা, চা ও মুদি দোকান,কাঁচা মালের ব্যবসা,পান ,বাদাম,মসল্লা,ও কাঠের ব্যবসা,ভ্যান ও রিক্সা  চালক , হাঁস মুরগি পশু পালন,দর্জির কাজ আর্থিক সাহায্য পিঠা তৈরী ইত্যাদি বিষয়ে উদ্ধুব্দুকরণ,প্রশিক্ষণ ,বিকল্প প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ২০১৭সালের ডিসেম্বর মানের মধ্যে পটুয়াখালী সদর উপজেলাকে ভিক্ষুকমুক্ত উপজেলা হিসেবে ঘোষণা করা হবে।সভায় সদর উপজেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা , কর্মচারীবৃন্দ, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং সচিববৃন্দ,বিভিন্ন এনজিও থেকে আগত প্রতিনিধিগন উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, পটুয়াখালী সদর উপজেলার লাউকাঠি ইউনিয়নে ৪৬ , বদরপুরে ৩৫, ইটবাড়িয়ায় ৫৯, লোহালিয়ায় ১৬, কমলাপুরে ১৯, জৈনকাঠিতে ১০, কালিকাপুরে ১৪ , মাদারবুনিয়ায় ৩৯ , মরিচবুনিয়ায় ২৩ , আউলিয়াপুরে ৪৬, ছোটবিঘাইতে ২৫ এবং বড়ঘিাইতে ৩৬ জন মোট ৩৬৮জন ভিক্ষককের তালিকা করা হয়েছে। এদেরকে ক্ষুদ্র ব্যবসা, কাপড়ের ব্যবসা, চা ও মুদি দোকান,কাঁচা মালের ব্যবসা,পান ,বাদাম,মসল্লা,ও কাঠের ব্যবসা,ভ্যান ও রিক্সা  চালক , হাঁস মুরগি পশু পালন,দর্জির কাজ আর্থিক সাহায্য পিঠা তৈরী ইত্যাদি বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিয়ে তাদেরকে আর্থিক সহায়তার মাধমে পূর্ণবাসন করা হবে।