ভোটররা কিছুই জানেন না পটুয়াখালীর আউলিয়াপুরের ১৩ ভোটারকে মাইগ্রেট করেছে কমিশন

5

 

 

চিনময় কর্মকার, পটুয়াখালী ঃ মাইগ্রেটের আবেদন না করলেও পটুয়াখালী সদর উপজেলার আউলিয়াপুর ইউপির ১৩ ভোটারকে মাইগ্রেট করেছে জেলা নির্বাচন অফিস। নতুন ভোটর তালিকায় এ ১৩ ভোটারের মাইগ্রেট হওয়ার তথ্য পাওয়া গেছে। নির্বাচনের আগে এ খবর পেয়ে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেছে সংশ্লিষ্ট ভোটাররা। তারা নির্বাচনের আগে তাদের নিজ নিজ এলাকায় ভোট দেয়ার দাবী জানিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট ভোটার ও স্থানীয় একাধীক জনপ্রতিনিধি অভিযোগ করে বলেন, পটুয়াখালী সদর উপজেলার আউলিয়াপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ভোটর নং ২৩৭, ২৩৮, ২৬২, ২৬৩, ২৭১, ২৮৩, ৩০১, ৩১০, ৩৪৮, ৩৫৩, ৩৫৫, ৫৪১ নম্বরের ভোটরদের বিনা আবেদনে মাইগ্রেট করে পটুয়াখালী পৌরসভার ভোটার করা হয়েছে। মাইগ্রেট হওয়া ভোটর মোঃ খোকন, আবদুল হক, শাহ আলম, মোঃ বাবুল সহ একাধিক ভোটার জানান তারা বর্তমানে আউলিয়াপুর ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডে স্থায়ীভাবে বসবাস করছেন। তাদের বাপ দাদার ভিটা এখানে। দীর্ঘদিন তারা এখানে ভোট দিয়ে আসছেন। গত কয়েকদিন আগে তাদের ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য তাদের ভোট মাইগ্রেট হওয়ার তথ্য দেন। পরে তারা নির্বাচন অফিসে খোজ নিয়ে নতুন ভোটার তালিকায় তাদের ভোট না থাকার তথ্য পান। ভুক্তভোগীরা আরো জানান, তাদের ওয়ার্ডের মেম্বর পদপ্রার্থী শাহজাহান কিছুদিন আগে তাদের রিলিফ দেয়ার কথা বলে তাদের ভোটর আইডি কার্ড নিয়ে কয়েকদিন পর ফেরত দেন। তিনি এ কাজ করতে পারে বলে তারা সন্দেহ করছেন।

 

এ বিষয়ে ৫ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ ফারুক হোসেন জানান তিনি বিষয়টি ভুক্তভোগীদের কাছে শুনেছেন। এ বিষয়ে জেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করলে তারা আবেদন করতে বলেছেন। নির্বাচন অফিসে আবেদনও  করা হয়েছে। সাধারন মানুষের সাথে যিনি প্রতারনা করেছেন তাদের শাস্তি দাবী করেন তিনি।

 

আউলিয়াপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন শাহ আলম শরীফ জানান, ভোটার মাইগ্রেট করতে হলে চেয়ারম্যানের প্রত্যয়ন পত্র প্রয়োজন হয়। তার কাছ থেকে ভোট মাইগ্রেটের জন্য ৫ নং ওয়ার্ডেরে কোন লোক প্রত্যয়নপত্র নেননি। মিথ্যা তথ্য ও আবেদন করে যারা সাধারন মানুষের সাথে এ প্রতারনা করেছে তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান তিনি।

 

এ বিষয়ে জেলা নির্বাচন অফিসার নাজমুল কবির জানান তিনি আবেদন পেয়েছেন এবং এটি দেখার জন্য সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে। তবে নির্বাচনের আগে এটি ঠিক করা যাবে না বলেও জানান তিনি।