মির্জাগঞ্জে পিয়ন যখন চিকিৎসক

5

মোঃ বাদল হোসেন মির্জাগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার চালিতাবুনিয়া উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রটির কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার সাগর দত্ত নিয়মিত অফিস না করায় পিয়ন মোঃ আবুল কালাম চিকিৎসা সেবা চালিয়ে যাচ্ছেন। এতে উপ স্বাস্থ্যকেন্দ্রটির চিকিৎসা সেবা ভেঙ্গে পড়ছে। জানা যায় উপজেলা মজিদবাড়িয়া ইউনিয়নের চালিতাবুনিয়া উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রের কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার সাগর দত্ত নিয়মিত অফিসে না এসে নিজে চেম্বার খুলে রোগী দেখেন। এদিকে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ডাক্তার না থাকায় পিয়ন মোঃ আবুল কালাম নিজেই চিকিৎসা দিচ্ছেন রোগীদেরকে। গতকাল সকাল ১১.০০ টায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় রোগীরা স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সামনে বসে আছেন। পিয়ন কতগুলো ঔষধ টেবিলের উপর এলোমেলো ভাবে রেখে রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছেন। চিকিৎসা নিতে আসা সুলতানাবাদ গ্রামের মোঃ আবুল কালাম খাঁ বলেন ডাক্তার সাহেব নেই তাই পিয়ন এর কাছ থেকে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে।  সেতারা বেগম বলেন যখনি আসি তখনি ডাক্তার পাই না। পিয়ন আমাদের চিকিৎসা ও ঔষধ দেন।  ডলি বেগম বলেন জ¦র নিয়ে এসেছি ডাক্তার নেই। পিয়ন জ¦রের ঔষধ দিচ্ছে। ঔষধের নাম জিজ্ঞাসা করলে বলেন ভাই সব রোগেই একই ঔষধ। সুলতানাবাদ গ্রামের মাসুদ বলেন ডাক্তার সাহেবকে পাই না তাই বাধ্য হয়ে পিয়নের কাজ থেকে ঔষধ নেই। এ ব্যপারে পিয়ন মোঃ আবুল কালাম বলেন স্যার নিয়মিত অফিসে না আসায় বাধ্য হয়ে আমি রোগীদের মাঝে ঔষধ গুলো বিলিকরি। বেশি অসুস্থ কোন রোগী আসলে স্যারকে ফোন দেই স্যার আমাকে যে ঔষধ দিতে বলে আমি সেইগুলো দেই। ভাই আমার দোষ কি। এ ব্যাপারে ডাঃ সাগর দত্ত বলেন আমার পারিবারিক ঝামেলার কারনে আমি নিয়মিত অফিসে আসতে পারি না। এ ব্যাপারে মির্জাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্যকর্মকর্তা মোঃ হুমায়ুন কবির বলেন আমি নুতন যোগদান করেছি বিষয়টি আমার জানা নেই।