মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণ করেন আবদুল বারেক হাওলাদার

0

দুমকি প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর যুদ্ধকালীন কমান্ডার আবদুল বারেক হাওলাদার জীবন সায়াহ্নে বর্তমান ও পরবর্তি প্রজন্মেও প্রতি মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ-বাহন , মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শণ এবং সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ মুক্ত বাংলাদেশ বিনির্মাণে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানিয়েছেন। সম্প্রতি পটুয়াখালীর সাবেক এই মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার তার নিজবাড়ি বাউফল উপজেলার ঘুরচাকাঠীর পৈত্রিক বসত: বাড়িতে মুক্তিযুদ্ধ কালীণ নানা ঘটনা, সহযোদ্ধাদের স্মৃতিচারণকালে তিনি এ আহবান জানান। তিনি নিজেকে মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭মার্চের ঐতিহাসিক ঘোষনার প্রত্যক্ষ স্বাক্ষী দাবি করে, বলেন, ৭১এর ৭মার্চ তৎকালীন রেসকোর্স মাঠে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশনার পর সেনাবাহিনীর চাকুরীরত অবস্থায় মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েন। ঢাকা থেকে পায়ে হেটে বরিশাল পৌছে সহ-যোদ্ধাদের সংগঠিত করে  বরগুনার আমতলী  উপজেলা কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন। তার টুআইসি হাবিলদার আঃ রাজ্জাক, মির্জাগঞ্জের কমান্ডার ওয়াজেদ মিয়া, দুমকির আব্দুল আলি আজাদী মাস্টার, রাজা ওয়ালিউল হক মজনু মিয়া, মুরাদিয়ার আবদুস সালামসহ সহযোদ্ধা এবং শহীদ সহযোদ্ধাদের স্মরণ করেন। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীণ বর্তমান সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতাবৃদ্ধি, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, নাতি-নাতনিদের চাকুরীতে কোটা সংরক্ষণসহ নানা ভাবে সন্মানিত করায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।