মুক্ত দিবস স্মরনে সুন্দরমের আলোর মিছিল

1

স্টাফ রিপোর্টারঃ পটুয়াখালী মুক্ত দিবসকে স্মরন করে আলোর মিছিল করেছে সাংস্কৃতিক সংগঠন সুন্দরম। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় সুন্দরম কার্যালয়ের সামনে থেকে মিছিলটি শরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে মুক্তিযুদ্ধ বিজয় স্তম্ভে ফুল দিয়ে ও মোমবাতি জ্বেলে শহীদদের প্রতি সম্মান জানান সুন্দরমের সাংস্কৃতিক কর্মীরা। আলোর মিছিলে নেতৃত্ব দেন প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে আলোড়ন সৃষ্টিকারী সুন্দরম কর্মী শির্ষেন্দু বিশ্বাস।

এ বিষয়ে সুন্দরমের সাধারন সম্পাদক তরিকুল ইসলাম রুবেল জানান, পটুয়াখালী হানাদার মুক্ত হয় ৮ ডিসেম্বর। এ দিনটিকে যথাযথ ভাবে স্মরন ও নতুন প্রজন্মের সামনে বিষয়টি তুলে ধরতেই তাদের এ আয়োজন। আগামীতে আরও বড় পরিসরে মুক্ত দিবস পালনের আশাবাদ ব্যাক্ত করেন তিনি।

মুক্তিযোদ্ধা মানস কান্তি দত্ত বলেন, সুন্দরমের এ আয়োজনের জন্য তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। বিজয়ের এ দিনটিকে মনে রেখে সুন্দরম যে আয়োজনটি করেছে এবং নতুন প্রজন্মের অনেককে এ অনুষ্ঠানে একত্রিত করে মুক্ত দিবসের ইতিহাসটি তুলে ধরেছে তার জন্য আরও একবার তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। নতুন প্রজন্মের হাত ধরে আগামী দিনে নির্মিত হবে মুক্তিযুদ্ধের আলোয় উদ্ভাসিত বাংলাদেশ।

এ সময় আলোর মিছিলে যোগ দিয়ে সুন্দরমের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেন পটুয়াখালীর প্রবীন সাংস্কৃতিক কর্মী এ্যাড. ফজলে আলী খান,  সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সাধারন  সম্পাদক মুজাহিদ প্রিন্স, বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার সভাপতি এ্যড. উজ্জ্বল বোস, সাধারন সম্পাদক মুজাহিদ তুষার, পটুয়া খেলাঘর আসর সাধারন সম্পাদক চিনময় কর্মকার, গনসংগীত সমন্বয় পরিষদের সাধারন সম্পাদক মিঠুন পাল বান্টি, জেলা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ রাশেদ খান, ধ্রুবতারা সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের আহবায়ক সুজয় চক্রবর্তী প্রমুখ।