ম্যাগনেট পিলার প্রতারক চক্রের এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৮

18

র‌্যাব-৮, সিপিসি-১, পটুয়াখালী ক্যাম্প এর একটি বিশেষ আভিযানিক দল ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার সহকারী পরিচালক মোঃ রবিউল ইসলাম এর নেতৃত্বে ০৯/৯/২০২০ইং তারিখে সন্ধ্যা আনুমানিক ০৭.৩০ ঘটিকার সময় বরগুনা জেলার আমতলী থানাধীন আড়পাংগাশিয়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোঃ ফরিদ উদ্দিন (৫০), নামের ম্যাগনেট পিলার প্রতারণা চক্রের এক সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করে। এসময় তার নিকট হতে একটি পিলার, দুইটি চুম্বক চাকতি এবং চুম্বক টেষ্ট কিট জব্দ করা হয়। গ্রেফতারকৃত মোঃ ফরিদ উদ্দিন, বরগুনা জেলার, আমতলীর আড়পাংগাশিয়া গ্রামে মৃত সামছু মোল্লার পুত্র। আসামী মোঃ ফরিদ উদ্দিন আমতলী থানা এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে এই ম্যাগনেট পিলার ও পিলারের মধ্যের চুম্বক চাকতি দিয়ে প্রতারণা করে আসছিল। কতিথ এই পিলারে অবস্থিত চুম্বক চাকতি অতি উচ্চ আকৃষ্ট করতে পারে এবং একেকটি  চুম্বকের মূল্য কোটি টাকার উপরে বলে প্রচলিত আছে। তারা ব্যবসায়ীদের কৌশলে নিজ এলাকায় নিয়ে আসে এবং স্যাম্পল হিসেবে চুম্বকের চাকতি দেখায়। এই চাকতির গায়ে খোদাই করে লেখা থাকে ঊঅঝঞ ওঘউওঅ ঈঙগচঅঘণ *১৮১৮* এবং মাঝ লেখা থাকে উঅঘএঊজ। চুম্বকটি যে আসল তা প্রমান করতে যে টেষ্ট কিট হিসেবে ব্যবহার করে শুকনো ধান যা একটি কাচের টিউবের মধ্যে সংরক্ষিত থাকে। আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জানাযায় চাকতিগুলো তারা নিজেরাই তৈরী করে এবং যে ধানগুলো দিয়ে টেষ্ট করা সেগুলোর ভিতরে পূর্বে থেকেই সুক্ষভাবে লোহা জাতীয় পদার্থ ঢুকানো থাকে। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বড়, বড় ব্যবসায়ীরা এই চুম্বকের প্রতরণা চক্রের ফাঁদে পা দিয়ে সর্বস্ব খুইয়েছেন। এরই প্রেক্ষিতে সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব-৮ এর একটি চৌকস আভিযানিক দল মোঃ ফরিদ উদ্দিনকে আটক করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধৃত আসামী তার অপরাধ স্বীকার করে এবং তার নামে ১৯৭৪ সনের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫ (খ) ধারায় একটি মামলা দায়ের করে আসামীকে বরগুনা জেলার আমতলী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। র‌্যাবের এ ধরনের কার্যক্রম ভবিষ্যতে অব্যাহত থাকবে।(প্রেস বিজ্ঞপ্তি)