রাঙ্গাবালীতে আ’লীগ প্রার্থী ও বিদ্রোহীর সমর্থকদের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত

1

রাঙ্গাবালী সংবাদদাতাঃ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন। সংঘর্ষের সময় ৪০টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং বসতবাড়ি ভাঙচুর ও মালামাল লুটের ঘটনা ঘটেছে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওই ইউনিয়নের চরবেষ্টিন এলাকায় সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, চরমোন্তাজ ইউপির আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মো. হানিফ মিয়া (নৌকা) বৃহস্পতিবার বিকেলে চরবেষ্টিন দক্ষিণকান্দা টিলা এলাকায় কর্মীসভা করে তাঁর কর্মীদের নিয়ে চরবেষ্টিন বাজারে যাচ্ছিলেন। সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে তাঁরা চরবেষ্টিন বাজারের চৌরাস্তায় পৌঁছে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. নাজমুল হুদার (ঘোড়া) বিপক্ষে উসকানি মূলক কথা-বার্তা বললে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন এলাকা থেকে দুই পক্ষের লোকজন ঘটনাস্থলে জড়ো হতে থাকে। রামদা, চাপাতিসহ দেশী তৈরি অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে দুই ঘন্টা ধরে দুই পক্ষের তিন দফায় সংঘর্ষে হয়। খবর পেয়ে রাত ১০টার দিকে রাঙ্গাবালী থানা পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৬৫ জন আহত হয়েছেন। এরমধ্যে সুমন (২৮), জামাল মাতবর (৩৫), সবুজকে (২৫) গুরুত্বর আহত অবস্থায় বরিশাল শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং বাকিদের পটুয়াখালী, গলাচিপা, চরফ্যাশন ও স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। সংঘর্ষ চলাকালে দুই পক্ষের ২টি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। চরবেষ্টিন বাজার ও নলুয়া বাজারের প্রায় ৪০টি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান এবং বসতবাড়ি ভাঙচুর ও মালামাল লুটের ঘটনা ঘটেছে বলে স্থানীয় কয়েকজন জানিয়েছেন।

আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. নাজমুল হুদা (ঘোড়া) বলেন, ‘বৃহস্পতিবার আমি আমার কর্মীদের নিয়ে চরমোন্তাজ থেকে চরবেষ্টিনের দিকে যাচ্ছিলাম। সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে নলুয়া বাজারের কাছে আমার এক কর্মীর সঙ্গে মো. হানিফ মিয়ার এক কর্মীর কথা কাটাকাটির জের ধরে হানিফ মিয়ার লোকজন আমার সমর্থকদের ওপর হামলা করে।’

আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী মো. হানিফ মিয়া বলেন, ‘আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মো. নাজমুল হুদা পরিকল্পিতভাবে সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটিয়েছেন। আগেই থেকেই তিনি লোকজন নিয়ে অপেক্ষা করছিলেন। আমরা চরবেষ্টিন থেকে লোকজন নিয়ে চরমোন্তাজ যাওয়ার পথে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে নলুয়া বাজারের কাছে নাজমুল হুদার লোকজন আমাদের ওপর হামলা করে।’

এ ব্যাপারে রাঙ্গাবালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শামসুল আরেফীন বলেন, ‘ওই এলাকায় পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এলাকার পরিস্থিতি এখন শান্ত। সংঘর্র্ষের ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।