রাঙ্গাবালীতে ঘেরের মাছ লুট ॥ ১৯জনের বিরুদ্ধে মামলা 

2

ডেক্স রিপোর্টঃ পটুয়াখালীর জেলায় রাঙ্গাবালী উপজেলার, রাঙ্গাবালী সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক এবং উপজেলা যুবলীগের সদস্য, সাবেক ইউপি সদস্য মৎস্য চাষী  মোস্তাফিজুর রহমানের ঘেরের দেড় লক্ষ টাকার মাছ লুট করে নিয়েছে  র্দুবৃত্তরা । এ ঘটনায় ১৯জনকে আসামী করে রাঙ্গাবালী থানায় মাছ লুটের একটি মামলা করেছেন মৎস্য চাষী আ’লীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান।

পুলিশের কাছে দেয়া অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, সাবেক ইউপি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ২০১১ ইং সনে রাঙ্গাবালীর আমলিবাড়ীয়া মৌজার পশ্চিম নেতার রুপাইর খাল প্রায় (সাত) একর জমি যুব-উন্নয়ন থেকে লীজ নিয়ে  রুপাই খালে দীর্ঘ বছর যাবত  রুই, কাতলা, চিংড়ী ও কার্প জাতীয় মাছ চাষ করে আসছে। ঘটনার দিন ২৩ এপ্রিল শনিবার সকাল ৯ টায়   মোস্তাফিজুর রহমান  জেলেদের নিয়ে রুপাইর খালে তার চাষ করা বিভিন্ন জাতের মাছ ধরে। এ মাছ ধরার খবর পেয়ে  রাঙ্গাবালী ইউনিয়নের বাদল হাওলাদার (৪৫) ও মো. বাছেদ (৩২) এর নেতৃত্বে ১৫ থেকে ২০জন ঘটনাস্থলে এসে মোস্তাফিজুর রহমানকে বিভিন্নভাবে  ভয়-ভীতি ও  জীবন নাশের হুমকি দিয়ে জোরপূর্বক প্রায় দেড় লক্ষ টাকার বিভিন্ন জাতের মাছ লুট করে নিয়ে যায়। এ সময় মৎস্য চাষী সাবেক ইউপি  মেম্বর মোস্তাফিজুর রহমান বাঁধা দেয়ার চেষ্টা করলে বাদল হাওলাদার জানায়, বাঁধা দিলে খবর আছে, ভয় দেখিয়ে মাছ গুলো নিয়ে যায়র্দুবৃত্তরা ।

এ মাছ লুটের ঘটনায় মোস্তাফিজুর রহমান গতকাল রবিবার  বেলা ১১টায়  রাঙ্গাবালী থানায় বাদল হাওলাদার (৪৫) ও মো. বাছেদ (৩২), রুবেল (৩৫), কবির খান (৩৮), সোহেল (৩০), নান্নু (২৭), রাকিব (২৯), সলেমান (৩৫), মাসুদ (২৭), রিয়াজ (৩০), রিপন (২৯), রাসেল (২৭), জাহিদ (২৫), জসিম (৪৪)  কে সহ ১৯জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন।

মাছ লুটের ঘটনা, রাঙ্গাবালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার কাজী. মো. আলিম উল্লাহ ও পুলিশ সুপার পটুয়াখালীকে অবহিত করেছেন বলে মৎস্য চাষী সাবেক ইউপি মেম্বর  মোস্তাফিজুর রহমান জানান। রাঙ্গাবালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মর্কতা মোঃ শামছুল আরেফিন জানান সাবেক ইউপি সদস্য মোস্তাফিছুর রহমান মাছ লুট ঘটনার বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।