রি-কল প্রকল্পের মতবিনিময় কর্মশালা

5

স্টাফ রিপোর্টারঃ ইকনমিক এমপাওয়ারমেন্ট অব দি পুওরেস্ট ইন বাংলাদেশ(ইইপি) প্রকল্প স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ণ ও সমায় মন্ত্রণালয় রেজিলিয়েন্স থ্রু এমপাওয়ারমেন্ট, ক্লাইমেট এ্যাডাপ্টেশন, লিডারশীপ এন্ড লানিং  রি-কল প্রজক্টে প্রকল্পের মতবিনিময় কর্মশালা পটুয়াখালীতে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা ১১টায় পটুয়াখালী ক্লাবে মিলনায়তনে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ডিএফআইডি – সিঁড়ি, অক্সফাম এর সহযোগিতায় এবং ওয়েভ ফাউন্ডেশন রি-কল প্রকল্পের অনুষ্ঠিত মতবিনিময় কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক এ কে এম শামিমুল হক ছিদ্দিকী।অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ সোহরাব হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মশালায় প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়ে পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে উপস্থাপন করেন রি-কল প্রকল্পের প্রকল্প সমন্বয়কারী কাজী মোঃ গিয়াস উদ্দিন।এ ছাড়া মতবিনিময় কর্মশালায় আলোচনা করেন সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মোঃ জাকির হোসেন, সিভিল সার্জন প্রতিনিধি ডাঃ রেজাউর রহমান, জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ এ কে এম আঃ রহমান, জেলা সমবায় কর্মকর্তা শাহাবুদ্দিন বিশ্বাস, ছোটবিঘাই ইউপি চেয়ারম্যান আলতাফ হোসাইন হাওলাদার, বদরপুর ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান মানিক মিয়া, মাদারবুনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোসফিকুর রহমান মিলন মাঝি, জৈনকাঠী ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফিরোজ আলম, লাউকাঠী ইউপি চেয়ারম্যান মো. শহিদুল অঅলম খোকন , রি-কল প্রকল্পের প্রকল্প সহ-সমন্বয়কারী মোঃ আজিজুর রহমান, সাংবাদিক জালাল আহমেদ, সমাজসেবক মাহফুজা ইসলাম প্রমুখ।

কর্মশালায় সরকারি বে-সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা,জনপ্রতিনিধি ,সাংবাদিক,এনজিও প্রতিনিধিসহ ৫০ জন প্রতিনিধি অংশ গ্রহণ করেন।

ইকনমিক এমপাওয়ারমেন্ট অব দি পুওরেস্ট ইন বাংলাদেশ(ইইপি) প্রকল্প স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ণ ও সমায় মন্ত্রণালয় রি-কল প্রকল্প পটুয়াখালী জেলার সদর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের ১১৪টি গ্রামে ১৬৩ টি সিবিও গঠন করে ১ সেপ্টেম্বর ২০১১ সাল থেকে কাজ করে যাচ্ছে। যা আগামি  ২০১৬ সালের ৩১ আগষ্ট এই প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হবে।প্রধান অতিথি বলেন,রি-কল প্রকল্প মূলত দূর্যোগ ঝুঁকি নিরসন ও জলবায়ু পরির্বনের সম্ভাব্য ক্ষতির প্রভাবকে মোকাবেলা করার জন্য ঘাতসহনশীল কমিউনিটি গড়ে তোলার মাধ্যমে উপকূল,চর এলাকার জনগনের উন্নয়নের জন্য নিরলসভাবে কাজ করছে। দক্ষিণাঞ্চলের বৃহৎ জনগোষ্ঠীকে জলবায়ু পরিবর্তন জনিত খাপ খায়ানো ও টেকসই উন্নয়ণের আওতায় আনার জন্য প্রয়োজন বৃহৎ উদ্যোগ। এই উদ্যোগ গ্রহণের জন্য স্থানীয় সরকার,জনপ্রতিনিধি,সিভিল সোসাইটি এবং মিডিয়াকে একই প্লাটফরমে কাজ করতে হবে।