শারিরীক প্রতিবন্ধকতার কাছে হার না মেনে পা দিয়ে লিখে জেডিসি পরীক্ষায় অংশগ্রহন করছে বেলাল

0

গোফরান পলাশ, কলাপাড়া : শারিরীক প্রতিবন্ধকতা রুখতে পারেনি বেলালের শিক্ষার অদম্য বাসনাকে। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় বেলাল এক পায়ে লেখার খাতা ধরে, অন্য পায়ের আঙ্গুল দিয়ে কলম চেপে ধরে লিখে অংশ নিচ্ছে জেডিসি পরীক্ষায়। পা দিয়ে লিখেই বেলাল তার সাফল্যের ধারাবাহিকতার পথে এগিয়ে যেতে চায়।

 

কলাপাড়ার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের উমেদপুর গ্রামের বর্গাচাষী খলিলুর রহমান আকন ও গৃহীনি হোসনেয়ারা বেগমের দুই ছেলে আর দুই মেয়ের সংসারের ছোট ছেলে বেলাল। জন্ম থেকেই দুই হাত বিহীন শারিরীক প্রতিবন্ধী বেলাল। বেলালের এই শারিরীক প্রতিবন্ধীতা তাকে শিক্ষা গ্রহনের আগ্রহ থেকে বিচ্যুত করতে পারেনি। হাত দিয়ে কাজ করতে না পারলেও পা দিয়ে সারছেন জীবনের দৈনন্দিন কাজ সহ লেখার কাজ। কারো সাহায্য নিয়ে নয় নিজের কাজ নিজেই করতে পছন্দ করেন বেলাল। উমেদপুর ইসলামীয়া দাখিল মাদ্রাসা থেকে পিএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করে ইতিপূর্বে ৩.৭৫ পেয়ে উত্তীর্ন হয়েছে বেলাল।

 

মাদ্রাসা সুপার মাওলানা মো. হাবিবুল্লাহ জানান, মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেনীর ৬১ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে মেধা তালিকায় ষষ্ঠ স্থানে থাকা বেলালের ভাল ফলাফলের ব্যাপারে আশাবাদী তিনি । অসুস্থ না থাকলে আবহাওয়া যতই প্রতিকূলে থাকুক না কেন বেলাল মাদ্রাসায় আসা বন্ধ করেনা। অন্যান্য শিক্ষার্থীর চেয়ে তার জানার আগ্রহ অনেক বেশী। সাত বছর বয়স থেকে প্রবল শিক্ষা গ্রহনের আগ্রহ বেলালের। তার শিক্ষা গ্রহনের অদম্য ইচ্ছায় গর্বিত তার বাবা-মা ও শিক্ষকরা।

 

বেলালের বাবা দরিদ্র কৃষক খলিলুর রহমান জানান, বেলালের শিক্ষা আর স্বপ্নপূরনে তিনি সাধ্যমত সব রকমের সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি সমাজের বিত্তবান মানুষ সহ সরকারী ও বে-সরকারী উন্নয়ন সংস্থার সহায়তা কামনা করছেন তিনি।