সংবাদ প্রকাশের পর অসহায় রাহিমা পেল  সেলাই মেশিন ও নগদ টাকা

1

 

গোফরান পলাশ, কলাপাড়া বিশেষ প্রতিনিধি: ‘রাহিমার পরনের কাপড় ছাড়া কিছুই নাই’ শিরোনামের একটি সংবাদ গনমাধ্যমে প্রকাশের পর সহযোগীতার হাত বাড়িয়েছে এক হৃদয়বান যুবক। গতকাল রবিবার সকালে উপজেলার আলীপুর মৎস্যবন্দরের স্থানীয় গনমাধ্যম অফিসে অসহায় রাহিমার হাতে তুলে দেয়া হলো রাহিমার প্রত্যাশা অনুযায়ী একটি সেলাই মেশিন ও নগদ দেড় হাজার টাকা।

কলাপাড়া উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নে ছলিমপুর গ্রামে বাস করেন রাহিমা বেগম। গত ২৮ সেপ্টেম্বর নেশাখোর স্বামী সাগর নিজ ঘরে আগুন লাগিয়ে পুড়ে ছাই করে দেয় জীবিকার একমাত্র সম্বল সেলাই মেশিনসহ ঘরের যাবতীয় জিনিসপত্র। ফলে সংসার ও একমাত্র সন্তান নিয়ে রাহিমা বেগম দুঃখের সমুদ্রে ভাসছিলেন।

অসহায় রাহিমার জীবিকার চাকা ঘোরাতে এগিয়ে এলেন কুয়াকাটা হোটেল মোটেল ওনার্স এসোসিয়েশনের সাংগঠনিক সম্পাদক ও রোটারিয়ান আবাসিক হোটেল সৈকতের মালিক মো. জিয়াউর রহমান। তার উপস্থিতিতে রবিবার সকাল ১০টায় সেলাই মেশিন ও নগদ টাকা বিতরণে উপস্থিত কলাপাড়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবদুস সাত্তার ফরাজী, লতাচাপলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ডা. সিদ্দিকুর রহমান বিশ্বাস, কলাপাড়া প্রেসক্লাব সভাপতি মেজবাহউদ্দিন মাননু, কুয়াকাটা প্রেসক্লাব সভাপতি নাসির উদ্দিন বিপ্লব, কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রী কলেজের সহকারী অধ্যাপক ও সমকাল কুয়াকাটা প্রতিনিধি খান এ রাজ্জাক, কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সহ সভাপতি কাজী সাঈদ।

এক প্রতিক্রিয়ায় হৃদয়বান যুবক জিয়াউর রহমান জানান, অসহায় রাহিমা বেগমের আকুতি পূরণ করতে পেরে তিনি বেশ আনন্দিত। অপরদিকে রাহিমা বেগমও এ জন্য তাকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।