সন্তানের সামনে মাকে পিটিয়ে জখম

0

অতুল পাল, বিশেষ প্রতিনিধি: বাউফলে সন্তানের চোখের সামনে মাকে নির্মম ভাবে পিটিয়ে জখম করেছে পাষন্ড স্বামী। বুধবার সকালে বাউফল সদর ইউনিয়নের গোসিংগা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। গুরুতর আহত অবস্থায় ওই মাকে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গেছে, গোসিংগা গ্রামের মৃত্যু. জবেদ আলী মৃধার ছেলে জসিম উদ্দিন মৃধার সাথে মদনপুরা ইউনিয়নের মৃত্যু. খালেক হাওলাদারের মেয়ে ফরিদা বেগমের (৪৫) প্রায় ৩০ বছর আগে বিয়ে হয়। বর্তমানে তাদের সংসারে তিন মেয়ে এক ছেলে রয়েছে। বিয়ের সময় খালেক হাওলাদার তার মেয়ে জামাইকে নগদ অর্থসহ ২ লাখ টাকার মালামাল প্রদান করেছিলেন। স্বামী অর্কমা হওয়ায় প্রায়ই শ্বশুর বাড়ি থেকে বিভিন্ন ভাবে সাহায্য-সহযোগিতা করা হচ্ছে। পারিবারিক অভাব অনটনের কারণে স্বামী জসিম উদ্দিন স্ত্রী ফরিদা বেগমকে প্রায়ই মারধর করত এবং বাবার বাড়ি থেকে নগদ টাকা এনে দেয়ার জন্য চাপ দিত। গতকাল সকাল ১১ টার দিকে স্বামী জসিম উদ্দিন স্ত্রী ফরিদা বেগমকে তার বাবার বাড়ি গিয়ে ভাইদের থেকে ১০ হাজার টাকা এনে দেয়ার জন্য বলে। ফরিদা বেগম তাতে রাজি না হওয়ায় স্বামী জসিম উদ্দিন ক্ষিপ্ত হয়ে তার দশম শ্রেণীতে  পড়–য়া মেয়ে লিয়ার (১৪) সামনে লাঠি দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে নির্মমভাবে পিটিয়ে জখম করে। এক পর্যায়ে চুলের মুঠি ধরে টেনে হেচরে মাটিতে ফেলে তাকে মারধর করে। নির্যাতনের তীব্রতা সহ্য করতে না পেরে ফরিদা বেগম অজ্ঞান হয়ে পরেন। এসময় তার মেয়ে লিয়া মাকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে তাকেও বেধরক মারধর করা হয়। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় লিয়া তার আহত মাকে উদ্ধার করে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে। বাউফল থানার ওসি আযম খান ফারুকীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।