সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রায় ১০ শতাংশ জমি দখল মুক্ত

6

স্টাফ রিপোর্টারঃ নারী শিক্ষা বিস্তারের লক্ষ্যে ১৯৪৬ সালে তিন একর জমিেিত প্রতিষ্ঠিত পটুয়াখালী সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রায় ১০ শতাংশ জমি অবৈধ দখল মুক্ত করে লাল নিশান টানিয়ে দিলেন জেলা প্রশাসক একেএম শামিমুল হক ছিদ্দিকী ও পৌরসভার মেয়র ডাঃ মোঃ শফিকুল ইসলামসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।

সংশ্লিস্ট সূত্রে জানাগেছে, বিদ্যালয়ের উত্তর পশ্চিম পাশর্^স্থ পটুয়াখালী মৌজা, জে.এল নং ৩৮, খতিয়ান নং-৪, এস,এ দাগ নং-৫৬৬৮ এর পুকুরপাড় বেস্টিত ৬.৫০ শতাংশ এবং ৫৬৬৯ দাগের আংশিক সহ প্রায় ১০শতাংশ জমি পাশ^বর্তী জমির সদ্য ক্রেতা জনৈক  ব্যক্তি গাছপালা কেটে মাটি ভরাট করে অবৈধ দখলের চেষ্টায় টিনের বেড়া দিয়ে রাখে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুভাষ চন্দ্র শীল সহ সিনিয়র শিক্ষকরা ঘটনাটি জেলা প্রশাসক একেএম শামিমুল হক ছিদ্দিকী ও  পৌরসভার  মেয়র ডাঃ মোঃ শফিকুল ইসলামসহ সংশ্লিস্ট কর্মকর্তাদের অবহিত করেন। জনৈক ব্যক্তিদের কর্তৃক পটুয়াখালী সরকারি  বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের জমি অবৈধ দখলের ঘটনাটি ৩ অক্টোবর সোমবার সকালে জেলা প্রশাসক একেএম শামিমুল হক ছিদ্দিকী ও পৌরসভার মেয়র ডা. মো. শফিকুল ইসলাম পটুয়াখালী মৌজার ৩৮নং জেএল  এর ম্যাপ ও বিদ্যালয়ের কাগজপত্র দেখে এবং মাপঝোপ করে লাল নিশান টাঙিয়ে উক্ত জমি দখল মুক্ত করেন। এ সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুভাষ চন্দ্র শীল, সিনিয়র শিক্ষক শাহাদৎ হোসেন, মৃনাল কান্তি বড়াল, প্রবীর কুমার দত্ত, আশ্রাফ হোসেন খান, মো. হাবিবুর রহমান, মো. শওকত হোসেন, মোসাঃ রোকেয়া বেগম, মোসাঃ মুর্শিদা রাইহানসহ শিক্ষকবৃন্দ, পটুয়াখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি কাজী শামসুর রহমান ইকবাল, সাধারন সম্পাদক মুফতী সালাহউদ্দিন, সাবেক সভাপতি স্বপন ব্যানার্জী, পৌরসভার কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন আকন, এস.এম তৌহিদ, মতিন মাহমুদ জাহিদ সিকদার, বাসুদেব কুন্ডু, তারিকুল ইসলাম লিটন, মহিলা কাউন্সিলর সৈয়দা আকলিমুননেছা রুবী, জাহানারা রাজ্জাক প্রমুখ।

পটুয়াখালীর জেলা প্রশাসক এ.কে.এম শামিমুল হক সিদ্দিকী জানান, স্কুল কর্তৃপক্ষের অভিযোগের ভিত্তিতে অবৈধ দখলদারদের হাত থেকে জমিটি উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে পটুয়াখালী পৌরসভার মেয়র ডা: মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, উদ্ধারকৃত জমিটি পৌরসভা পক্ষ থেকে সীমানা প্রচীর নির্মান করে ও পুকুর টি খনন করে তা বিদ্যালয়ের ছাত্রীদের ব্যবহার উপেযাগী করে দেয়া হবে।

এদিকে অবৈধ দখলদারের হাতে থেকে জমি উদ্ধার হওয়ায় জেলা প্রশাসক ও পৌর মেয়রকে স্কুলে শিক্ষক শিক্ষার্থী ও অভিবাবকদের পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানানো হয়।