সোনারচর অর্থের বিনিময় খালের লিজ দেয়ার পায়তারার অভিযোগ

0

রাঙ্গাবালী  প্রতিনিধি ঃ পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমোন্তাজ ইউনিয়নের সোনারচর বিট কর্মকর্তা হারুন অর রশিদের নামে বনাঞ্চলের অভ্যন্তরের খালের সাপ্তাহিক পাস পারমিটের বদলে বছর ভিত্তিতে মোটা অংকের অর্থের বিনিময় ওই খাল এক বছরের জন্য লিজ দেওয়ার পায়তারার অভিযোগ উঠেছে।

সূত্র জানায়, সোনারচরের অভ্যন্তরের খালগুলেতে হত-দরিদ্র জেলেরা যাতে মাছ শিকার করে জীবিকা নির্বাহ করতে পারে, এজন্য পাস পারমিট দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে। কিন্তু  সোনারচরের অসাধু বিট কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ পায়তারা চালাচ্ছে ওইসব খাল বছর চুক্তিতে লিজ দেওয়ার জন্য।

রাঙ্গাবালীর হিরন বিশ্বাস নামের এক ব্যক্তি জানান, যোগসাজশ করে সোনারচর বিট কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ পাস পারমিটের বদলে বছর চুক্তিতে সোনারচর বনাঞ্চলের অভ্যন্তরের খালগুলো লিজের পায়তারা চালাচ্ছে। বিভিন্ন লোকজনের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকাও নিচ্ছে। আমার কাছ থেকেও গত বছর টাকা নিয়েছিল। কিন্তু অন্য পক্ষ বেশি টাকা  দেওয়ায় তাদেরকে বছর চুক্তিতে খাল লিজ দিয়ে দিয়েছে।’ নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ব্যক্তি  বলেন, ‘অসাধু এই বিট কর্মকর্তাকে সোনারচরের থাকলে বন বিভাগের শুনাম ক্ষুন্ন হবে।’ এ ব্যাপারে সোনারচর বিট কর্মকর্তার মোবাইলে বার বার কল করলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার মন্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।