স্কুল ছাত্রী যৌন হয়রানিকারীকে গ্রেফতারও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবীতে বাউফলে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

3

 

বাউফল প্রতিনিধিঃ টুয়াখালীর বাউফলে স্কুল ছাত্রীর যৌন হয়রানিকারীকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবীতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছেন নুরাইনপুর অগ্রণী বিদ্যাপীঠের শিক্ষক,শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। শনিবার সকাল ১০টায় বিদ্যালয়ের সামনে বাউফল-কালিশুরী সড়কে প্রায় ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র শিক্ষক বাবুল আখতার খান, মামুন অর রশিদ, ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সদস্য হুমায়ুন খান, অভিভাবক হবি আকন ও সাবেক সভাপতি ইউনুস কাজী। প্রধান শিক্ষক শহিদুল ইসলাম বলেন, গত ২৯ জানুয়ারী এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা শেষে দশম শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে শ্রেণী কক্ষে একা পেয়ে জোড়পূর্বক শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে একই বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী নয়ন মাঝি (১৬)। ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে ছাত্রীর ডাকচিৎকার শুনে বিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষার্থীরা দৌড়ে এসে নয়ন মাঝিকে হাতেনাতে আটক করে। এসময় ওই ছাত্রী মুক্তি পেয়ে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে এসে অজ্ঞান হয়ে পড়ে। এরই মধ্যে খবর পেয়ে নয়ন মাঝির বড় ভাই সুদেব মাঝি দলবল নিয়ে বিদ্যালয়ে এসে ফিল্মি ষ্টাইলে তাকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় ওই স্কুল ছাত্রীর বাবা বাউফল থানায় ৫জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। পরে পুলিশ নয়ন মাঝির বাবা সমীর মাঝিকে গ্রেফতার করলেও প্রধান আসামী নয়নকে এখনও গ্রেফতার করতে পারেনি। মামলার প্রধান আসামীকে অবিলম্বে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী জানান। এবিষয়ে বাউফল থানার ওসি আজম খান ফারুকী বলেন, নয়ন মাঝি ও তার ভাই সুদেব মাঝি এলাকার চি‎িহ্নত বখাটে। সম্প্রতি নয়ন ও সুদেব এর বিরুদ্ধে তার বাবার কাছে অভিযোগ করার পরও অভিভাবক হিসেবে তিনি কোন পদক্ষেপ নেননি। অপরাধীকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দেয়ায় তার বাবাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নয়ন মাঝিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।