৪ ট্রলারে জলদস্যুদের হামলা ॥ ১ মাঝি গুলিবিদ্ধসহ আহত তিন জেলে ট্রলারসহ ১২ জেলে অপহরন

2

 

মনিরুল  ইসলাম মহিপুর প্রতিনিধি ঃ কুয়াকাটা সংলগ্ন গভীর বঙ্গোপসাগরের ঢালচর এলাকায় জলদস্যুদের হামলার শিকার হয়েছে চারটি মাছ ধরা ট্রলার। এসময় জলদস্যুদের গুলিতে এফবি জসিম নামের ট্রলারের মাঝি কামাল মাথা ও বাহুতে গুলিবিদ্ধ হয় এবং জলদস্যুদের নির্মম প্রহারে তিন জেলে অহত হয়। পরে জলদস্যুরা ট্রলারটিসহ ১২ জেলেকে অপহরন করে নিয়ে যায়। আজ শুক্রবার বেলা বারোটায় গুলিবিদ্ধ মাঝি কামালকে কুয়াকাটা বিশ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করে। কামাল মাঝির বাড়ি ভোলার চরফ্যাশনের নুরাবাদ এলাকায়।

ডাকাতির শিকার ট্রলার গুলো হল ভোলার এফবি জসিম, পটুয়াখালীর আলীপুরের এফবি সাকিব, এফবি ফয়সাল এবং বরগুনার এফবি মুসা। অপহরন হওয়া ট্রলারের মালিক ইয়াছিন মাঝি জানান, বৃহস্পতিবার বেলা বারটার দিকে কুয়াকাট সংলগ্ন গভীর বঙ্গোপসাগরের ঢাল চর এলাকায় জাল টেনে তোলার সময় জলদস্যুরা গুলি ছুড়ে ট্রলারে হামলা চালায়। এসময় কামাল মাঝি মাথা, বাহু ও পিঠে গুলিবিদ্ধ হয়। জলদসূদ্যের মারধরে তিন জেলে আহত হয়।

এফবি সাকিব ট্রলারের জেলে কাওসার জানান, জলদস্যুরা তাদের ট্রলারসহ ১২ জেলেকে অপহর করে নিয়ে যায় এবং গুলিবিদ্ধ কামাল মাঝিসহ ছয় ছেলে ডাকতির শিকার অন্য ট্রলার এফবি ফয়সালে উঠিয়ে পাঠিয়ে দেয়। আজ বেলা বারোটায় তারা মৎস্য বন্দর আলীপুরে এসে পৌছায়। জলদস্যুরা সকল ট্রলারের জেলে এরবং মাঝিদের মারধর করে ট্রলারে থাকা মাছ, জালসহ সকল রসদ নিয়ে যায়। এসময় জরদস্যুরা তিনটি ট্রলারের ইঞ্জিন বিকল করে দিয়ে যায়।

কুয়াকাটা-অলীপুর মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও লতাচাপলী ইউপি চেয়ারম্যান আনসার উদ্দিন মোল্লা বলেন, র‌্যাবের ধারাবাহিক অভিযানে কোনঠাসা ও বিচ্ছিন্ন হয়ে পরা জলদস্যুরা একনো মাঝে মধ্যে গভীর সমুদ্রগামী জেলেদে উপড় হামলা চালাচ্ছে। এবিষয়ে বিভিন্ন জলদস্যু বাহিনীর অতœসমার্পন অনুষ্ঠানে স্বরাস্ট্র মন্ত্রী, র‌্যাব প্রধান ও র‌্যাব-৮ এর দৃস্টি অকর্ষন করেছি।