বাউফলে জুয়ার টাকা নিয়ে লঙ্কাকান্ড

0
56

অতুল পাল, বাউফল বিশেষ প্রতিনিধিঃ

বাউফলে জুয়া খেলার টাকা নিয়ে হামলা ও পাল্টা হামলার ঘটনায় পাঁচজন আহত এবং প্রায় অর্ধশত দোকান ও বাড়িতে হামলা ও ভাঙচুর হয়েছে। আহতদের মধ্যে একজনকে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকের কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এলাকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। গতকাল শনিবার(১৮এপ্রিল) সন্ধায় উপজেলার নওমালা ইউনিয়নের নগরের হাট বাজারে এঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয়ভাবে প্রাপ্ত একাধিক সূত্র জানায়, নওমালা ইউনিয়নের মৃত্যু রফিক হাওলাদারের (সাবেক ইউপি সদস্য) পুত্র রাহাত (২০) দুই দিন পূর্বে নাঈম(১৮) এবং মিরাজ(২০)সহ কয়েকজনকে নিয়ে জুয়া খেলেছিল। খেলায় রাহাত হেরে গেলে  নাঈম ও মিরাজ টাকা না পেয়ে রাহাতের মোবাইল রেখে দেয়। ঘটনার দিন সন্ধায় রাহাত তার মোবাইল আনতে গেলে জুয়ার টাকা নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির সময় স্থানীয় রাজনীতি এবং কে কার সমর্থক এনিয়েও বিতর্ক হয়। এক পর্যায় নাঈম ও মিরাজ রাহাতকে উপর্যপরি কুপিয়ে রাস্তায় ফেলে রাখে। এখবর রাহাতের বাড়ি পৌঁছালে মধু ও আল আমিনের নেতৃত্বে ১০/১২ জনের একটি দল দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে বাজরের গিয়ে প্রতিপক্ষ হাজী  রাজ্জাক, শাহ আলম,তালেব পঞ্চায়েত, ফিরোজ মুন্সি, ইসমাইল, কেশব, শানু হাওলাদার, আনিচ, জুলহাস, মামুন মৃধা, কায়কোবাদ চৌকিদারসহ ১৫টি দোকানে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এ তান্ডবের সময় দোকানে লুকিয়ে থাকা হারুন হাওলাদার (৩২) নামের এক ব্যবসায়িকেও কুপিয়ে আহত করা হয়।  হামলার সময় বাজারের মধ্যে হুরোহুরিতে পথচারি বারেক ,সবুজ, আরিফ আহত হয়।  এদিকে আহত রাহাতকে প্রথমে নগরের হাট ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র এবং পরে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। রাহাত নওমালা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান শাহজাদা হাওলাদারের সমর্থক বলে জানা গেছে। আহত রাহাতের মা ইউপি সদস্য মোসা. লাইজু বেগম জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে নাঈম, মিরাজ,ফয়েজ ও তাদের সাঙ্গপাঙ্গরা তার ছেলেকে হত্যার উদ্দেশ্যে কুপিয়ে রাস্তায় ফেলে রেখেছে। এদিকে সাবেক চেয়ারম্যানের সমর্থকরা দোকানপাট ভাঙচুর করেছে এমন জণশ্রুতিতে শাহজাদা হাওলাদারের সমর্থকরা রাতে প্রায় ৩০টি দোকানের সার্টার ও ৫টি বাড়ির দড়জা-জানালা কুপিয়ে ক্ষতিসাধন করেছে। ঘটনার পর থেকে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ টহল দিচ্ছে।

স্থানীয় সূত্র আরো জানায়, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন পর্যন্ত সাবেক চেয়ারম্যান নওমালা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক এ্যাডভোকেট কামাল হোসেন বিশ্বাস ও বর্তমান চেয়ারম্যান শাহজাদা হাওলাদারের মধ্যে কোন্দল চলে আসছে। এ বিষয়ে বাউফল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এটা স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দী দুই প্রার্থীর কর্মী ও সমর্থকদের কান্ড । আজ রোববার বিকেল ৫ টা পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here